করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে চলতি অর্থবর্ষ শেষ হওয়ার আগেই গ্রাহকদের আরও বেশি খরচে উৎসাহিত করতে ৭৩ হাজার কোটি টাকার একাধিক ব্যবস্থার কথা ঘোষণা করলেন অর্থ মন্ত্রী

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী শ্রীমতী নির্মলা সীতারমন আজ লকডাউনের পর কোভিড-১৯ মহামারীজনিত মন্থরতার ক্ষেত্রে তৎপর হতে অর্থনীতিতে আরও গতি সঞ্চারের লক্ষ্যে গ্রাহকদের অধিক অর্থ ব্যয়ে উৎসাহিত করার জন্য ৭৩ হাজার কোটি টাকার একগুচ্ছ পদক্ষেপের কথা ঘোষণা করেছেন। চাহিদা-ভিত্তিক স্টিমুলাস বা উৎসাহদান প্যাকেজের কথা ঘোষণা করে শ্রীমতী সীতারমন বলেন, সরকার ও সংগঠিত ক্ষেত্রের কর্মীদের মধ্যে সঞ্চয়ের প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। এই প্রেক্ষিতে আমরা চাই, এ রকম সাধারণ মানুষকে উৎসাহিত করতে, যাতে স্বল্প ব্যয়েই মানুষ সুবিধার্থে বাজারের চাহিদা আরও বাড়ানো যায়। তিনি আরও বলেন, আজ যে সমস্ত উৎসাহদান সম্পর্কিত প্যাকেজের কথা ঘোষণা করা হয়েছে, তার প্রেক্ষিতে চাহিদা বৃদ্ধি পেলে যে সমস্ত মানুষ কোভিড-১৯ এর কারণে প্রভাবিত হয়েছেন, তাঁরা পুনরায় ব্যবসায়ীক কাজকর্ম শুরু করতে আগ্রহী হয়ে উঠবেন। আজ যে সমস্ত উৎসাহদান ব্যবস্থার কথা ঘোষণা করা হয়েছে, জিডিপি-র বিকাশে তার সরাসরি প্রভাব পড়বে বলে মনে করা হচ্ছে। তিনি আরও জানান, ১২ হাজার কোটি টাকার মূলধনী বিনিয়োগের ক্ষেত্রে রাজ্যগুলিকে ৫০ বছর পর্যন্ত বিশেষ সুদ ছাড় দেওয়া হবে। এছাড়াও মূলধনী বিনিয়োগের জন্য ২০২০’র কেন্দ্রীয় বাজেটে যে ৪ লক্ষ ১৩ হাজার কোটি টাকা মঞ্জুর করা হয়েছে, তার অতিরিক্ত হিসাবে আরও ২৫ হাজার কোটি টাকা দেওয়া হবে।